কালিগঞ্জের গোবিন্দপুরে এক ভাই অপর ভাইকে লাঞ্ছিত করার জন্য বৃদ্ধ মাকে ভুল বুঝিয়ে নাটক সাজিয়ে হেয় করার চেষ্টা

ইমন সাতক্ষীরা কালিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ কালিগঞ্জের গোবিন্দপুরে এক ভাই অপর ভাইকে লাঞ্ছিত করার জন্য বৃদ্ধ মাকে ভুল বুঝিয়ে নাটক সাজিয়ে হেয় করার চেষ্টা করছে বাবার সম্পত্তি একা ভোগ করার জন্য, এমন একটি ঘটনা ঘটেছে সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ থানার কুশুলিয়া ইউনিয়নে গোবিন্দপুর গ্রামে, ঘটনা সূত্র ও বাদী পক্ষের আদালতের রায়ের এর সূত্র থেকে প্রকৃতভাবে নিউজে বর্তমানে তুলে ধরা হয়েছে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ অনুযায়ী দলিলজার জমি তার, আইন আদালত অন্ধ যেটা আবেগ দিয়ে চলে না এখানে মা-বাবা ভাই,বোন বা আবেগ দিয়ে চলে না, প্রকৃতপক্ষে বাদী গোবিন্দপুর গ্রামের আলীর ছেলে আজিজুল ইসলাম একজন নম্র ভদ্র শান্ত সৃষ্ট স্বভাবের শিক্ষক তিনি চাকরির সুবাদে নিজের বাবার বাড়ি থেকে বিভিন্ন স্কুলে শিক্ষকতা করেছেন যার কারণে তিনি সেভাবে বাড়িতে থাকেন, তার এই বাড়ি না থাকার সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে অন্যান্য ভাইয়েরা যাতে তাকে এই সম্পত্তির ভাগ বা তার পাওনা না দিতে হয় এজন্য বিভিন্ন কৌশল খাটিয়ে মাকে তাদের নীল নকশার বেড়াজারে ফেলে তার বাবার সম্পত্তি থেকে বিতাড়িত করার জন্য সকল প্রকার অপচেষ্টা চালিয়েছে, যেহেতু সরকারি আইন অনুযায়ী বাবার সম্পত্তির ভাগ তার আছে এজন্য মহামান্য আদালত তার প্রাপ ঘরবাড়ি জমি থাকা সহ সবকিছু সুস্পষ্টভাবে আইনের মাধ্যমে তাকে দিয়ে দিয়েছে, কিন্তু সম্পদ লোভী অন্য ভাইয়েরা শিক্ষক আজিজুর রহমানকে সমাজের কাছে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য মাকে নীল নকশার বেড়াজালে আটকিয়ে  সাংবাদিকদের ভুল বুঝিয়ে ডেকে নিউজ করিয়েছে, যেহেতু আজিজুর রহমান আইন আদালতের নিয়ম অনুযায়ী ন্যায্যভাবে সবকিছু পাবে, কিন্তু তাকে নিয়ে যে মিথ্যা বিভ্রান্তিমূলক নিউজ করা হয়েছে এজন্য গোবিন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা যারা প্রকৃত ঘটনাটি জানে তাদের ভিতরে ক্ষোভের ঝড় হইছে ও নিন্দা জানিয়েছে। যারা এই শিক্ষক আজিজুর রহমানের সম্মান ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করেছে তাদেরকে সুষ্ঠু তদন্ত ভিত্তিক বিচারের আওতায় আনার জন্য প্রশাসন ও আদালতের কাছে দাবি জানিয়েছে শিক্ষিত পরিবারটি।